New ibas++ Website । সরকারি আইবাস++ নতুন ওয়েবসাইট আগামী ১লা জুলাই উদ্বোধন করা হবে

আইবাস++ এর কার্যক্রম সাময়িক বন্ধ থাকার বিষয়ে আইবাস++ কর্তৃপক্ষ নোটিশ জারি করবে–New ibas++ Website

আইবাস++ কি বন্ধ থাকবে? হ্যাঁ। আইবাস++ নিয়ে নতুন ওয়েবসাইট উদ্বোধন উপলক্ষ্যে আগামী ৩০ জুন ২০২৪ তারিখ দিবাগত রাত ১২টা হতে ১ জুলাই ২০২৪ তারিখে দুপুর ১২টা পর্যন্ত আইবাস++ এর কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। তাই এ সময় আইবাস++ কার্যক্রম ব্যাহত হতে পারে।

আইবাস++ কি? আইবাস++, যার পূর্ণরূপ ইন্টিগ্রেটেড বাজেট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টিং সিস্টেম, হল বাংলাদেশ সরকারের একটি ইন্টারনেট-ভিত্তিক সফটওয়্যার যা বাজেট প্রণয়ন, বাস্তবায়ন এবং হিসাবরক্ষণের জন্য ব্যবহৃত হয়। এটি অর্থ মন্ত্রণালয়ের অধীনে একটি স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা ফাইন্যান্সিয়াল সিস্টেম ম্যানেজমেন্ট ইউনিট (FSMU) দ্বারা পরিচালিত হয়।

আইবাস++ দিয়ে কি কি করা যায়? আইবাস++ সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, অধিদপ্তর এবং দপ্তরকে তাদের বাজেট প্রস্তাব প্রস্তুত এবং জমা দিতে সহায়তা করে। আইবাস++ সরকারকে বাজেট বরাদ্দ অনুমোদন, অর্থ প্রদান এবং ব্যয় পর্যবেক্ষণ করতে সহায়তা করে। আইবাস++ সরকারের আয়, ব্যয় এবং সম্পদের একটি কেন্দ্রীভূত হিসাবরক্ষণ ব্যবস্থা প্রদান করে। আইবাস++ সরকারকে বিভিন্ন ধরণের বাজেট এবং হিসাবরক্ষণ রিপোর্ট তৈরি করতে সহায়তা করে।

আইবাস++ এর কার্যক্রম সাময়িক বন্ধ সংক্রান্ত / আইবাস++ নোটিশে যা বলেছে

আইবাস++ সরকারের বাজেট প্রক্রিয়া আরও স্বচ্ছ করে তোলে। আইবাস++ সরকারের বাজেট প্রণয়ন, বাস্তবায়ন এবং হিসাবরক্ষণের দক্ষতা উন্নত করে। আইবাস++ সরকারকে আরও ভাল সিদ্ধান্ত নিতে সহায়তা করে। আইবাস++ সরকারের অপ্রয়োজনীয় ব্যয় হ্রাস করতে সহায়তা করে।

New ibas++ Website । সরকারি আইবাস++ নতুন ওয়েবসাইট আগামী ১লা জুলাই উদ্বোধন করা হবে

Caption: ibas++ source

নতুন আইবাস++ । আইবাস++ দিয়ে কি কি কাজ করা যায়? আইবাস++ ব্যবহার করে সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, দপ্তর এবং সংস্থাগুলো বাজেট প্রণয়ন, বাস্তবায়ন, হিসাবরক্ষণ এবং রিপোর্টিং সহ বিভিন্ন কাজ করতে পারে।

  1. বাজেট প্রণয়ন: বাজেট প্রস্তাব প্রণয়ন ও জমা দেওয়া, বাজেট শ্রেণীবদ্ধকরণ ও কোডিং, বাজেট লাইন আইটেম তৈরি, বাজেট সংশোধন প্রস্তাব করা।
  2. বাজেট বাস্তবায়ন: বাজেট বরাদ্দ অনুমোদন, অর্থ প্রদান, ব্যয় পর্যবেক্ষণ, বাজেট ম্যানেজমেন্ট রিপোর্ট তৈরি।
  3. হিসাবরক্ষণ: আয়, ব্যয় এবং সম্পদের হিসাব রক্ষণ, আর্থিক লেনদেনের রেকর্ড রক্ষণাবেক্ষণ, হিসাব নীতি প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন, হিসাবরক্ষণ রিপোর্ট তৈরি।
  4. রিপোর্টিং: বিভিন্ন ধরণের বাজেট এবং হিসাবরক্ষণ রিপোর্ট তৈরি, রিপোর্ট বিশ্লেষণ এবং ব্যাখ্যা, রিপোর্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দেওয়া এছাড়াও, আইবাস++ ব্যবহার করে আরও অনেক কাজ করা যায়, যেমন: প্রকল্প ব্যবস্থাপনা: আইবাস++ ব্যবহার করে সরকার বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের পরিকল্পনা, বাস্তবায়ন এবং পর্যবেক্ষণ করতে পারে।
  5. ক্রয়: আইবাস++ ব্যবহার করে সরকার দ্রব্য ও সেবা ক্রয় করতে পারে।
  6. স্টক ম্যানেজমেন্ট: আইবাস++ ব্যবহার করে সরকার সরকারি সম্পদের স্টক রক্ষণাবেক্ষণ করতে পারে।
  7. মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা: আইবাস++ ব্যবহার করে সরকার সরকারি কর্মচারীদের তথ্য পরিচালনা করতে পারে। আইবাস++ সরকারের জন্য একটি বহুমুখী হাতিয়ার যা বিভিন্ন ধরণের কাজ সম্পাদন করতে ব্যবহার করা যেতে পারে। এটি সরকারের দক্ষতা এবং কার্যকারিতা উন্নত করতে সাহায্য করছে।

আইবাস++ দিয়ে কি বেতন বিল সাবমিট করা যায়?

হ্যাঁ, আইবাস++ ব্যবহার করে সরকারি কর্মচারীদের বেতন বিল সাবমিট করা যায়। এটি DDO (District Disbursing Officer) কর্তৃক করা হয়। বেতন বিল সাবমিট করার প্রক্রিয়া হল DDO তার আইবাস++ অ্যাকাউন্টে লগ ইন করে। DDO “Staff Pay” মডিউলে যায়। DDO “Bill Entry” অপশন নির্বাচন করে। DDO বেতন বিলের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য যেমন কর্মচারীর নাম, পদবী, বেতনের পরিমাণ ইত্যাদি ইনপুট করে। DDO বেতন বিল সাবমিট করে। বেতন বিল সাবমিট করার পর, SDO (Sub-District Officer) বিলটি অনুমোদন করে। অনুমোদন করার পর, বিলটি Account Office তে পাঠানো হয়। Account Office বিলটি পরীক্ষা করে এবং অর্থ প্রদানের জন্য অনুমোদন করে।

ibas2

I am a web developer who is working as a freelancer. I am living in Dhaka, a crowded city of Bangladesh. I am working to help for ibas++ user solving problems of it. My site: Technicalalamin.com

ibas2 has 315 posts and counting. See all posts by ibas2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *